আলীকদমে ৫৭ বিজিবির অনুদান : শিক্ষার্থী-শিক্ষক পেল ১০৭ সুয়েটার, অভিভাকরা পেলো ১০০ কম্বল


Momtaj Uddin Ahamad প্রকাশের সময় : জানুয়ারী ২৬, ২০২৪, ১২:১২ অপরাহ্ন /
আলীকদমে ৫৭ বিজিবির অনুদান : শিক্ষার্থী-শিক্ষক পেল ১০৭ সুয়েটার, অভিভাকরা পেলো ১০০ কম্বল

প্রেসক্লাব ডেস্ক:

আলীকদম আশ্রায়ন প্রকল্পভূক্ত এলাকার স্কুলপড়ুয়া শিক্ষার্থীদের শীতবস্ত্র ছিল না। পাহাড়ি-বাঙ্গালী সম্প্রদায়ের দরিদ্র অভিভাবকদের পক্ষেও তাদের সন্তানদের শীতবস্ত্র কিনে দেওয়ার সামর্থ ছিলো না। তাই কোমলমতি শিক্ষার্থীরা প্রতিদিন সকালে কনকনে ঠান্ডায় বিদ্যালয়ে উপস্থিত হতো শুধুমাত্র স্কুলড্রেস পড়েই।

সম্প্রতি এ ধরণের একটি খবর পেয়ে আলীকদম উপজেলাধীন অসতি ত্রিপুরা পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন আলীকদম ব্যাটালিয়নের (৫৭ বিজিবি) অধিনায়ক লেঃ কর্নেল আকিভ জাবেদ, পিএসসি। সে সময় তিনি সংশ্লিষ্ট প্রধান শিক্ষককে এসব দরিদ্র শিক্ষার্থীদে শীতবস্ত্র প্রদানের আশ্বাস দেন।

শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) বেলা ১১টায় ১০১ জন শিক্ষার্থী ও ৬ জন শিক্ষকসহ মোট ১০৭ জনের উন্নতমানের সুয়েটার প্রদান করা হয়েছে আলীকদম ব্যাটালিয়নের (৫৭ বিজিবি) উদ্যোগে। সে সাথে ১০০ জন অভিভাবকদের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, বিদ্যালয়টি উপজেলার প্রান্তিক জনপদ আশ্রায়ণ প্রকল্প এলাকাভূক্ত।

এ শীতবস্ত্র অনুদান প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিজিবি কক্সবাজার রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ মোরশেদ আলম।

এছাড়াও আলীকদম ব্যাটালিয়নের (৫৭) বিজিবি) অধিনায়ক লেঃ কর্নেল আকিব জাভেদ, পিএসসি, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আতাউল গণি উসমানী, উপজেলা সহকারি শিক্ষা অফিসার মংচিংনু মার্মা, ৫৭ বিজিবির স্টাফ অফিসার, বিজিবির বিভিন্ন পদবীর সদস্য, স্কুলের এসএমসি সদস্য, প্রেসক্লাব সভাপতি ও স্থানীয় সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

বিজিবি কর্র্র্তৃক প্রদানকৃত শীতের কম্বল পেয়ে আলীকদম আশ্রায়ন প্রকল্পের বাসিন্দা মোঃ হারুন বলেন, নিকট অতীতে কোন সরকারি কর্তৃপক্ষ থেকে তারা অনুদান পাননি। বিজিবি কর্তৃক আশ্রায়ন প্রকল্পের বাসিন্দারা এবং তাদের শিক্ষার্থীরা শীতবস্ত্র পাওয়ায় তিনি কৃতজ্ঞতা জানান কক্সবাজার রিজিয়নের বিজিবির রিজিয়ন কমান্ডার ও ৫৭ বিজিবির অধিনায়কের প্রতি।

আশ্রায়ণ প্রকল্পের বাসিন্দা সুফল চাকমা ত্রিপুরা বলেন, ‘আমরা খুবই খুশী হয়েছি। বিজিবি আমাদেরকে কম্বল এবং শিক্ষার্থীদেরকে দামী শীতের সুয়েটার দিয়েছে।

বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক জয়নব আরা বেগম বলেন, বিদ্যালয়টি আলীকদম উপজেলা সদর নিকটবর্তী হলেও প্রান্তিক জনপদ। অভিভাবকরা খুবই দরিদ্র। বিজিবির অনুদান পেয়ে আমরা ধন্য। ৫৭ বিজিবির প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ।

উল্লেখ্য, ৫৭ বিজিবি থানচি উপজেলার দুর্গমে ৮টি বিওপি এবং ০১টি চেকপোষ্টের মাধ্যমে ইতোমধ্যে কয়েক শতাধিক শীতবস্ত্র (কম্বল) বিতরণ করেছে। এ ব্যাটালিয়নটি ২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে পেশাদারিত্ব ও দক্ষতার মাধ্যমে আলীকদম ও থানচি উপজেলার বাংলাদেশ-মায়ানমার সীমান্তে অপারেশনাল কার্যক্রম চালাচ্ছে। ব্যাটালিয়নটি বিভিন্ন সময়ে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা, দুস্থদের মাঝে নগদ অর্থ, বস্ত্র বিতরণ ও শীতকালীন কম্বল বিতরণ করে আসছে।