আলীকদম ৫৭ বিজিবি’র ৯ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে প্রীতিভোজ ও শীতবস্ত্র বিতরণ


Momtaj Uddin Ahamad প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ২৪, ২০২৩, ৩:০৪ অপরাহ্ন /
আলীকদম ৫৭ বিজিবি’র ৯ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে প্রীতিভোজ ও শীতবস্ত্র বিতরণ

।। মমতাজ উদ্দিন আহমদ ।।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ এর আলীকদম ব্যাটালিয়ন (৫৭ বিজিবি)’র  ৯ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে রবিবার (২৪ ডিসেম্বর) ব্যাটালিয়ন সদরে দুপুরে প্রীতিভোজ অনুষ্ঠান এবং স্থানীয় অসহায় ও দুস্থ পরিবারের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়েছে।

রবিবার বেলা সাড়ে ১২টায় আলীকদম ব্যাটালিয়নের (৫৭ বিজিবি) ব্যবস্থাপনায় কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কক্সবাজার রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ মোরশেদ আলম। এ সময় তিনি স্থানীয় দুঃস্থ-গরীব পাহাড়ি-বাঙ্গালীদের মাঝে ২০০টি কম্বল বিতরণ করেন।

কম্বল বিতরণ ও প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রামু সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মো. মেহেদী হোসাইন কবির, পিএসসি ও আলীকদম ব্যাটালিয়ন (৫৭ বিজিবি) অধিনায়ক লে. কর্নেল আকিব জাভেদ, পিএসসি। এছাড়াও সেনাবাহিনী ও বিজিবির বিভিন্ন পদস্থ কর্মকর্তা, লামা এবং আলীকদম উপজেলার শীর্ষস্থানীয় জনপ্রতিনিধি, পুলিশ ও বেসামরিক কর্মকর্তা, চেয়ারম্যান, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য ২০১৪ সালের ২৩ ডিসেম্বর সাতকানিয়ার বাইতুল ইজ্জতে বর্ডার গার্ড ট্রেনিং সেন্টার ও স্কুল (বিজিটিসিএন্ডএস) চত্বরে বিজিবি’র সাবেক মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমদ কর্তৃক আলীকদম ব্যাটালিয়ন (৫৭ বিজিবি)’র পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে এ ব্যাটালিয়নটির কার্যক্রম শুরু হয়েছিল।

তৎসময়ে আলীকদম ব্যাটালিয়ন (৫৭ বিজিবি)’র সদর দপ্তর স্থাপিত না হওয়ায় বিজিবি প্রধান বিজিটিসিঅ্যান্ডএস প্যারেড গ্রাউন্ডে পতাকা উত্তোলন করেছিলেন। তৎসময়ে ৫৭ বিজিবি প্রতিষ্ঠার মধ্যদিয়ে বান্দরবান জেলায় চারটি পূর্ণাঙ্গ ব্যাটালিয়ন সীমান্ত প্রহরায় দায়িত্বে নিয়োজিত হয়। বর্তমানে আলীকদম উপজেলার নয়াপাড়া ইউনিয়নে বিশাল আয়তনের সবুজাভ অরণ্যবেশিষ্টতে প্রান্তরে ৫৭ বিজিবির দৃষ্টিনন্দন সদর দপ্তর সৃষ্টি হয়েছে। ব্যাটালিয়নটি পূর্ণাঙ্গ কার্যক্রম শুরুর পর থেকে সীমান্ত সুরক্ষার পাশাপাশি বিভিন্ন সময় মানবিক কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে।

জানা গেছে, আলীকদম ব্যাটালিয়ন (৫৭ বিজিবি) বিগত বছরগুলোতে চোরাচালানবিরোধী উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে সক্ষম হয়। রবিবার আয়োজিত প্রীতিভোজ অনুষ্ঠানে বিজিবির পক্ষ থেকে প্রদত্ত তথ্যবিবরণীতে বলা হয়, এ ব্যাটালিয়নের সদস্যগণ সীমান্তের অতন্দ্র প্রহরী হিসেবে দেশপ্রেম, পেশাদারিত্ব, কর্তব্যনিষ্ঠা এবং দক্ষতার মাধ্যমে বান্দরবান জেলার থানচি উপজেলার সীমান্ত এলাকায় দেশের সীমান্ত রক্ষার গুরুদায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও তারা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার পাশাপাশি বাংলাদেশ-মায়ানমার সীমান্তের অতিদূর্গম ০৮টি বিওপি’র অপারেশনাল কার্যক্রম পরিচালনাসহ সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর অপতৎপরতা প্রতিহত করার কাজে ব্যাপৃত রয়েছেন।

বিশেষ করে আলীকদম উপজেলায় গবাদিপশুর চোরাচালানরোধে ৫৭ বিজিবি উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে সক্ষম হয়। পাশাপাশি মাদকদ্রব্য চোরাচালানরোধেও তাদের উল্লেখ্যযোগ্য অবদান রয়েছে বলে স্থানীয় জানিয়েছেন।          

এদিকে, অপারেশন উত্তরণের আওতায় বাঙ্গালী ও পাহাড়ী উপজাতিদের মধ্যে বিভিন্ন সময়ে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান, নগদ অর্থ, বস্ত্র বিতরণ, শীতকালীন কম্বল বিতরণ এবং বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থরে মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণেও বাংলাদেশ বিজিবির আলীকদম ব্যাটালিয়নটি মানবিক কর্মকাণ্ডের ধারা অব্যাহত রেখেছে।