আলীকদম উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা


Momtaj Uddin Ahamad প্রকাশের সময় : অগাস্ট ৩০, ২০২৩, ৫:১৬ অপরাহ্ন /
আলীকদম উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

বান্দরবানে চোরাচালান ও মারধরের অভিযোগে আলীকদম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালামসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

বুধবার (৩০ আগস্ট) দুপুরে উপজেলার নয়াপাড়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড মেরিনচর এলাকার মাংলে ম্রো বাদী হয়ে থানায় এ মামালা করেন।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন- সদর ইউনিয়নের আলীমুদ্দিন পাড়ার বাসিন্দা আলী, বাবু এবং চৌমহনী এলাকার বাসিন্দা মোস্তফা। তারা সবাই উপজেলা চেয়ারম্যানের সহযোগী হিসেবে পরিচিত।

আলীকদম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার তবিদুর রহমান মামলার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। প্রতিদিনের বাংলাদেশকে তিনি বলেন, ‘তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম পার্শ্ববর্তী দেশ মায়ানমার থেকে অবৈধ পথে গরু ও বিভিন্ন মাদকদ্রব্য এনে দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করে আসছিল।

এসব কাজে টাকার প্রলোভন দেখিয়ে ম্রো জনগোষ্ঠীর সহজসরল যুবকদের ব্যবহার করে বিপদগামী করছিলেন।

গত ২৮ আগস্ট চোরাচালানের খবর পেয়ে স্থানীয়রা আলীকদম-কুরুকপাতা-পোয়ামুহুরী সড়কের মেরিনচর যাত্রী ছাউনি এলাকায় অবস্থান নেয়। পরে রাত সাড়ে ৯ টার দিকে আলীকদমগামী তিনটি গাড়ি গতিরোধ করলে দ্বিতীয় ও তৃতীয় গাড়িতে প্রচুর পরিমাণে বিদেশি সিগারেট পাওয়া যায়।

গাড়ি থেকে এসব সিগারেট নামিয়ে ফেলতে চাইলে প্রথম গাড়িতে থাকা আবুল কালাম ও তার সঙ্গীরা মারধর করে গাড়িগুলো উল্টোপথে নিয়ে ঠাণ্ডাঝিরি এলাকায় লুকিয়ে রাখে।

বিষয়টি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জানালে ওইদিন রাত ২ টার দিকে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের দেখানো জায়গা থেকে প্রায় ৩৩ লাখ টাকা মূল্যের ১১ হাজার প্যাকেট বিদেশি সিগারেট উদ্ধার করে। 

জানতে চাইলে উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আবুল কালাম বলেন, ‘এসব অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। আমার প্রতিপক্ষ হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য বাদীকে চাপ দিয়ে মামলা করিয়েছে।’